কমলনগরে ঝড় জলোচ্ছ্বাসে ক্ষতি সহায়তা পাচ্ছেন ৩ হাজার কৃষক

কমলনগরে ঝড়-জলোচ্ছ্বাসে ক্ষতি: সহায়তা পাচ্ছেন ৩ হাজার কৃষক

শাহরিয়ার কামাল ,কমলনগর (লক্ষ্মীপুর) থেকে

ঝড়-জলোচ্ছ্বাসে ক্ষতিগ্রস্ত লক্ষ্মীপুরের কমলনগর উপজেলার তিন হাজার ১৫০ জন কৃষক ৩৫ লাখ ৯১ হাজার টাকার সহায়তা পাচ্ছেন। প্রাকৃতিক দুর্যোগের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে পুনর্বাসন ও প্রণোদনা কর্মসূচির আওতায় সরকার তাদের এ সহায়তা দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে।

পুনর্বাসন কর্মসূচির আওতায় উপজেলার আড়াই হাজার কৃষক ২৬ লাখ ১৯ হাজার এবং প্রণোদনা কর্মসূচির আওতায় ৬৫০ জন ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষক ৯ লাখ ৭২ হাজার টাকার সার ও বীজ সহায়তা পাবেন। ইতোমধ্যে কৃষি বিভাগ সুবিধাভোগী কৃষকদের তালিকা তৈরির কাজ শুরু করেছে। তালিকা অনুমোদন শেষে অল্প সময়ের মধ্যে কৃষকদের মাঝে এ সার ও উচ্চ ফলনশীল জাতের বীজ বিতরণ কার্যক্রম শুরু হবে।

IMG 20201129 WA0001

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট লঘুচাপের প্রভাবে দুই দফার অতিবৃষ্টি ও মেঘনার জলোচ্ছ্বাসে উপজেলায় কৃষি খাতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। অধিক ফসল ফলিয়ে এ ক্ষতি পুষিয়ে নিতে দুই হাজার ৫০০ কৃষকের মাঝে ২৬ লাখ ১৯ হাজার ৩৮০ টাকার সহায়তা বিতরণ করা হবে। সহায়তা হিসেবে কৃষকরা গম, সরিষা, সূর্যমুখী, চীনাবাদাম, মসুর, খেসারি, টমেটো ও মরিচের বীজ এবং ডিএপি ও এমওপি সার পাবেন।

গমের ক্ষেত্রে প্রতি কৃষক ২০ কেজি বীজ, সরিষার ক্ষেত্রে এক কেজি, চীনাবাদামের ক্ষেত্রে ১০ কেজি, মসুরের ক্ষেত্রে পাঁচ কেজি, খেসারির ক্ষেত্রে আট কেজি, সূর্যমুখীর ক্ষেত্রে এক কেজি, টমেটোর ক্ষেত্রে ৫০ গ্রাম ও মরিচের ক্ষেত্রে ৩০০ গ্রাম বীজ পাবেন। সঙ্গে প্রত্যেক কৃষককে সর্বোচ্চ ১০ কেজি ডিএপি ও ১০ কেজি এমওপি সার সহায়তা হিসেবে দেওয়া হবে।

অন্যদিকে, রবি মৌসুমের প্রণোদনা কর্মসূচির আওতায় ৬৫০ জন ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষক ৯ লাখ ৭২ হাজার ৯৭০ টাকার বোরো, গম, ভুট্টা, সরিষা, সূর্যমুখী, চীনাবাদম, মুগডালের বীজ ও সার পাবেন। বোরোর ক্ষেত্রে প্রতি কৃষক এক কেজি বীজ, গমের ক্ষেত্রে ২০ কেজি, ভুট্টার ক্ষেত্রে দুই কেজি, সরিষার ক্ষেত্রে এক কেজি, সূর্যমুখীর ক্ষেত্রে এক কেজি, চীনাবাদামের ক্ষেত্রে ১০ কেজি ও মুগডালের ক্ষেত্রে পাঁচ কেজি করে বীজ পাবেন। তাদের প্রত্যেককে সর্বোচ্চ ১০ কেজি ডিএপি ও ১০ কেজি এমওপি সার দেওয়া হবে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) ইকতারুল ইসলাম জানান, প্রাকৃতিক দুর্যোগের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে জমিতে অধিক ফলনের লক্ষ্যে কৃষকদের এ সহায়তা দেওয়া হচ্ছে। এতে কৃষকরা ফসল আবাদে উৎসাহ পাওয়ার পাশাপাশি অধিক ফসল উৎপাদনের মাধ্যমে লাভবান হতে পারবে।

About admin

Avatar of admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *