স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ওয়াও জামালপুর কমিটি গঠন

স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘ওয়াও জামালপুর” কমিটি গঠন: সভাপতি ফজলুল করিম, সম্পাদক জহুরুল

জামালপুর জেলার স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ওয়ার্ক অন ওয়েলফেয়ার জামালপুর ( Work On Welfare Jamalpur) সংক্ষেপে ‘WOW Jamalpur’ এর পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে।
আজ শনিবার (২১ নভেম্বর) সকাল ১০ টায় “ওয়াও জামালপুর” এর অস্থায়ী কার্যালয় সরিষাবাড়ীর সেঙ্গুয়া চেরাগ আলী মোড়ে এক জরুরী সভার মাধ্যমে সর্বসম্মতিক্রমে এ কমিটি ঘোষণা করা হয়।
দীর্ঘদিন যাবৎ তারা বিভিন্ন জনকল্যাণমূলক করে আসছিল। কার্যকরী কমিটি ঘোষণার মাধ্যমে সংগঠনটি আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করলো।
সভায় ফজলুল করিম এর সঞ্চালনায় ও সাংবাদিক মোঃ জহুরুল ইসলাম ভূইয়া এর সভাপতিত্বে এক উৎসবমুখর পরিবেশে ২৭ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষিত হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন নব নির্বাচিত কমিটির সকল সদস্য সহ, সাধারণ সদস্য, স্বেচ্ছাসেবক- এম্বাসেডরবৃন্দ ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।
ঘোষিত কমিটিতে নির্বাচিত যারাঃ
সভাপতি হিসেবে ফজলুল করিম, সহ-সভাপতি মোঃ সোলায়মান এবং সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নির্বাচিত হন মোঃ জহুরুল ইসলাম ভূঁইয়া।
অন্যান্য পদে
সহ সাধারণ সম্পাদকঃ মোঃ মিলন মিয়া, সাংগঠনিক সম্পাদকঃ এস এম জুয়েল রানা, সহ সাংগঠনিক সম্পাদকঃ মোঃ আলম মিয়া,
কোষাধ্যক্ষঃ মোঃ রুবেল খান, সহ-কোষাধ্যক্ষ মোঃ মনিরুল ইসলাম, শিক্ষা ও সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদকঃ মোঃ মুনছের আলী বিজয়, তথ্য ও গবেষণাবিষয়ক সম্পাদকঃ এ. এইচ. ইমরান,
ধর্মবিষয়ক সম্পাকঃ মোঃ সাইদুর রহমান, মহিলা ও শিশু বিষয়কঃ সম্পাদকঃ মোঃ সোহেল রানা, ত্রাণ ও দুর্যোগবিষয়কঃ সম্পাদকঃ মোঃ রুবেল মিয়া, ব্লাড বিষয়ক সম্পাদকঃ স্বপন ইসলাম টুটুল, ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদকঃ মোঃ মিজানুর রহমান, প্রচার সম্পাদঃ মোঃ খোকন মিয়া, দপ্তর সম্পাদকঃ মোঃ জুুয়েল রানা,
কৃষি বিষয়ক সম্পাদকঃ মোঃ ইকবাল হোসেন,
স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদকঃ মোঃ নাজমুল হাসান, নির্বাচিত হন।
এছাড়াও কার্যকরী সদস্য হিসেবে মোঃ মুরাদ খান, মোঃ সামিউল ইসলাম, মোঃ রুমেল মিয়া, মোঃ আলহাজ উদ্দিন, মোঃ মুসা মিয়া, মোঃ লিটন মিয়া, মোঃ সবুজ মিয়া ও মোঃ মোশাররফ হোসেন মনি নির্বাচিত হয়েছেন।

২০১২ সাল থেকে সংগঠনটি শিক্ষার উন্নয়ন, সমাজ কল্যাণ, অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি, সংস্কৃতি বিকাশ, রক্তদান, অসহায়, অবহেলিত, বঞ্চিত, গরীব মানুুষ ত্রাণ বিতরণসহ
বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে।

সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক বলেন,
“একদল তরুণদের ওয়াও জামালপুরের ছায়াতলে এনে প্রশিক্ষিত করার মাধ্যমে জামালপুরের শিক্ষার উন্নয়ন, সমাজ কল্যাণ, অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি, সংস্কৃতি বিকাশ, মানবসম্পদ উন্নয়ন, অসহায়, অবহেলিত, বঞ্চিত, গরীব মানুষের পাশে থাকার অঙ্গিকার নিয়ে প্রতিষ্ঠা আমাদের “ওয়ার্ক অন ওয়েলফেয়ার জামালপুর” সংগঠনটির।
সবার আগে দেশপ্রেম, ব্যক্তি স্বার্থের উর্ধ্বে গিয়ে মানবসেবার ব্রত নিয়ে কাজ করাই হলো “ওয়াও জামালপুরের মূল লক্ষ্য। সংগঠনের প্রতিটি সদস্য দেশপ্রেম, জাতীয় স্বার্থ, সার্বভৌমত্ব এবং জাতীয় গৌরবের প্রতি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। দেশীয় সংস্কৃতি রক্ষায় আমরা অঙ্গীকারবদ্ধ। মানুষের জন্য কল্যাণকর ও সমাজের মধ্যে সু-শিক্ষা, নৈতিকতা, মূল্যবোধ তৈরি করতেই আমরা এই সংগঠনটি প্রতিষ্ঠা করেছি।”
তিনি আরও বলেন, “সংগঠনের কার্যক্রম আরো বৃদ্ধি করা হবে, সকলে মিলে আরো সুন্দর কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন করে সংগঠনের ভিত্তি আরো মজবুত করবো ইনশাআল্লাহ।”

সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি বলেন,
“সচেতন নাগরিক হিসাবে প্রতিটি মানুষের রয়েছে সামাজিক দায়বদ্ধতা। সেই উপলদ্ধি ও মানুষের মূল্যবোধের তাগিদে অত্র এলাকার কতিপয় উদ্দ্যোগী তরুণ যুবকদের সম্লিলিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে সামাজিক জনকল্যাণমূলক কর্মকান্ড বাস্তবায়নের লক্ষ্যে জন্ম Work On Welfare Jamalpur সংগঠনটির।
আসলে যাঁরা স্বেচ্ছাশ্রমে কাজ করেন, তাঁরা একপ্রকার ‘ঘরের খেয়ে বনের মোষ তাড়ান’। অনেকেই তাঁদের ‘পাগল’ বলে। তবে ওই পাগলরাই সমাজ পরিবর্তনে কাজ করেন। বিপদগ্রস্ত–অসহায় মানুষের পাশে গিয়ে দাঁড়ান। আমি বিশ্বাস করি সকল স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র ওই প্রচেষ্টাই একসময় দেশকে বদলে দেবে, সমাজকে বদলে দেবে, আলোকিত করবে বাংলাদেশকে।”
ওয়াও জামালপুর এর পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে সকলের সাহায্য ও সহযোগীতা কামনা করেন তিনি।

About admin

Avatar of admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *